ময়মনসিংহ জোন উপকেন্দ্র ও এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচী ২০২২

ময়মনসিংহ সহ আশেপাশের এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংআজ ২৩ জুলাই ২০২২ তারিখে এলাকাভিত্তিক পিক আওয়ার ও অপ পিক আওয়ার লোডশেডিংয়ে এর সময়সূচী দেওয়া হয়েছে। তবে কোন এলাকায় কখন লোডশেডিং হবে তা ১দিন আগেই জানিয়ে দেওয়া হবে। এ সময় ওই এলাকায় এক থেকে দুই ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

দেখে নিন প্রতিদিন লোডশেডিং সময়সূচি ২০২২

PGCB বিদ্যুৎ লোডশেডিং এর নতুন সময়সূচী ২০২২ প্রকাশ করেছে। বিস্তারিত দেখুন এখানে

ময়মনসিংহ এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচী জানতে ক্লিক করুণ এখানে

তারিখঃ ২৩-০৭-২০২২

বিবরণ দিনের সর্বোচ্চ সন্ধ্যায় সর্বোচ্চ
আজকের চাহিদার পূর্বাভাস (মেগাওয়াট) ১২৩০০ ১৪৫০০
গতকালের প্রকৃত উৎপাদন (মেগাওয়াট) ১২১০৪ ১৩৭৬৫

“বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় লোডশেডিংই একমাত্র সমাধান।”

জেলা ও উপজেলা এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচী

আগামীকাল থেকে লোড শেডিং শুরু, তবে কোন এলাকায় কখন লোডশেডিং হবে তা আগেই মানুষকে জানিয়ে দেওয়া হবে। এ সময় ওই এলাকায় এক থেকে দুই ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে। আপনার এলাকায় কখন বিদ্যুৎ থাকবেনা তা আপনারা জানতে পাবেন আমাদের এই সাইট থেকে। এছডা ও সরকারি ওয়েবসাইট থেকে ও আপনাদেরকে জানিয়ে দেওয়া হবে। এছাডা ও পত্রিকা বা অনালাইন পোটাল এর মাধ্যমে জানানো হবে এই লোডশেডিং এর সময়সূচী।

এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচী জানতে ক্লিক করুণ এখানে

লোডশেডিং এর সময়সূচীঃ

চট্রগ্রাম পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড লোডশেডিং এর জন্য ইতিমধ্যে  দুঃখ প্রকাশ। নতুন শিডিউল দেখতে ক্লিক করুণ।

সম্ভাব্য লোডশেডিং শিডিউল
ইমার্জেন্সি মেইনটেন্যান্স শিডিউল

জেলা ভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচীঃ  ময়মনসিংহ জোন সার্কেল ১, ২

১। ময়মনসিংহ জেলা

২। টাঙ্গাইল

৩। জামাল্পুর

সারাদেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং আওতায় যাহা থাকবে

** বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের জন্য প্রতিটি মসজিদের (নামাজের সময় বাদ দিয়ে) এসি বন্ধ।

** দোকানপাট ও মার্কেট রাত ৮টার পর বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। সরকারি-বেসরকারি অফিসের সভাগুলো অনলাইনে পরিচালনার সিদ্ধান্ত।
**গাড়িতে তেলের ব্যবহার কমাতে হবে।
**ডিজেলভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখা হবে।
**পেট্রোল পাম্পগুলো সপ্তাহে একদিন বন্ধ রাখা হবে এবং
**বিদ্যুতের ব্যবহার কমাতে হবে।
**সরকারি-বেসরকারি অফিসের সময় দুই ঘণ্টা কমিয়ে ৯টা থেকে বিকেল ৩টা করার  চিন্তা করা হচ্ছে।

এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচী জানতে ক্লিক করুণ এখানে

এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং কারন কি?

আমরা সবাই জানি রাশিয়া ইউক্রেন এর যুদ্ধের কারনে “আমেরিকা রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে, ইউরোপও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এর ফলস্বরূপ তেলের দাম বাড়ছে, সারের দাম বাড়ছে, খাদ্যের দাম বাড়ছে, জাহাজের ভাড়া বাড়ছে। সারা বিশ্বে এর প্রভাব পড়ছে। বাংলাদেশও এর দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে,”

প্রধানমন্ত্রী বলেন- “প্রতিটি এলাকাভিত্তিক, কোন এলাকায় কখন কত ঘণ্টা লোডশেডিং থাকবে, লোডশেডিং এমনভাবে করা হয়েছে যাতে মানুষ সে সময় প্রস্তুত থাকে, যাতে আমরা মানুষের দুর্ভোগ কমাতে পারি। ” সে বিষয়ে আমাদের নজর দিতে হবে।

এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং এর সময়সূচী জানতে ক্লিক করুণ এখানে

চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং করোনাভাইরাস মহামারীর প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশকে সব বাধা মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে। দেশের অন্যান্য অঞ্চলের পাশাপাশি রাজধানী চট্রগ্রাময় এখন ঘন ঘন লোডশেডিং হচ্ছে। প্রতিদিন গড়ে দুই হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কমেছে। বিশ্বব্যাপী তেলের ক্রমবর্ধমান দাম বেশিরভাগ গ্যাস-চালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করতে বাধ্য করেছে। অন্যদিকে বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোও বন্ধের পথে।

রাজধানীর বাইরের অবস্থা আরও খারাপ। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলো ময়মনসিংহ বিভাগে অবস্থিত। অন্যদিকে ময়মনসিংহ, সিলেট, রংপুর, ঠাকুরগাঁও, রাজশাহী, গাইবান্ধা, লালমনিরহাট এবং দিনাজপুর, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ, নোয়াখালী, ফেনী ও চাঁদপুরে লোডশেডিং উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর গ্যাস সংকটে ভুগছে এমন দেশগুলোতে বিদ্যুৎ বিভ্রাট অস্বাভাবিক কিছু নয়। এদিকে, টেক্সাসে একটি তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস সুবিধা সাময়িকভাবে বন্ধ হওয়ার পর থেকে ইউরোপ এবং এশিয়ায় গ্যাসের দাম সপ্তাহে 60 শতাংশের বেশি বেড়েছে। গত বছরের শুরু থেকে ইউরোপে গ্যাসের দাম ৭০০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে।