জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় [C ইউনিট] ভর্তি নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা ব্যবহারিক পরীক্ষা ২০২২ যা যা থাকবে

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে C ইউনিট এর এমসিকিউ ভর্তি অনুষ্ঠিত হয়ে গেছে এবং সেই অনুজায়ী ফলাফল ও প্রকাশ করা হয়ে গেছে।তবে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা শাখার জন্য ব্যবহারিক পরীক্ষা নেওয়া হয়ে থাকে।
তাই এই পরীক্ষার নেওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই পরীক্ষার সময়সূচী ও আসন বিন্যাস প্রকাশিত হয়েছে।  নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা ব্যবহারিক পরীক্ষা ২০২২ ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে C-ইউনিটের অন্তর্ভূক্ত নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা বিভাগের ব্যবহারিক পরীক্ষা গ্রহণ সংক্রান্ত সময়সূচি ও নির্দেশিকা নিচে দেওয়া হলো।

C-ইউনিটের অন্তর্ভূক্ত নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা বিভাগের ব্যবহারিক পরীক্ষা

নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলা বিভাগের ব্যবহারিক পরীক্ষা বিষয়বস্ত

১- চিত্রকলা
২- অভিনয়
৩- মাপেট ও পাপেট ড্যান্স
৪- নৃত্য
৫- সংগীত
৬- মূকাভিনয়
৭- আবৃত্তি
৮- বাদ্যযন্ত্র

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের C ইউনিটের ব্যবহারিক পরীক্ষার চূড়ান্ত দিকনির্দেশনা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের C ইউনিটের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব ও চারুকলা বিভাগে ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য যারা উত্তির্ন হয়েছ তাদের জন্য চূড়ান্ত দিকনির্দেশনা।
১। নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগঃ
ব্যবহারিক পরীক্ষার তারিখ ৮, ১০ ও ১১ আগস্ট ২০২২। হাতে সময় মাত্র ৫ দিন। পুরাতন কলা ভবনে পরীক্ষা ল্যাব রুমে অনুষ্ঠিত হবে। সবাইকে একটি ফরম দিবে পূরন করার জন্য। যেখানে তুমি কি কি পারো- নাচ, গান, অভিনয়, বাদ্যযন্ত্র যেমন তবলা বা হারমোনিয়াম বা ঢোল ইত্যাদি উল্লেখ করতে হবে। ,কি নাটক দেখেছো,প্রিয় ব্যক্তিত্ব কে?, কি কি বই পড়েছ? ইত্যাদি নানা বিষয়ে লিখে ফরম পূরন করতে হবে।রুমে ঢোকার পর সেখান থেকে তোমাকে প্রশ্ন করা হবে। ফরমে কোনো ভুল বা মিথ্যা তথ্য দেয়া যাবে না।
রুমে ঢোকার সময় যেসব জিনিস সাথে নিতে হবে- জাতীয় বা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোন পুরস্কার পেয়ে থাকলে তার সনদ। যেমন- নাচ, গান, অভিনয় বা যে কোন কিছুতে।
  • এক্সট্রা কারিকুলার অ্যাক্টিভিটিস এ যদি পুরস্কার থাকে তার সনদ।
  • এছাড়াও কখনও থিয়েটার করে থাকলে সংশ্লিষ্ট সংগঠনের সনদ।
  • কলম
  • যদি বাদ্যযন্ত্র বাজাতে পার যেমন – গিটার, দোতারা, বাঁশি, তবলা ইত্যাদি সেগুলা সাথে নিয়ে যেতে হবে।
ভেতরে যাবার পর তোমাকে জিজ্ঞেস করা হবে,২০ মার্কের ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য তুমি কি প্রস্তুতি নিয়ে এসেছো? বা কি করবে? বা তুমি কি পার? কিংবা শুরুর ১ মিনিট শুধু গল্পও করতে পারে তোমার সাথে। এরপর তখন তুমি নাচ,গান,অভিনয়,কবিতা আবৃত্তি, বাদ্যযন্ত্র বা যে কোন কিছু হতে পারে সেটা লাঠিখেলা বা মূকাভিনয় ইত্যাদি।
যে যেটা পারো বা প্রস্তুতি নিয়ে গেছো সেটা করবে।
যদি একাধিক বিষয়ে প্রস্তুতি থাকে,তাহলে সবচেয়ে যেটা ভালো পারো, সেটা আগে করবে। যেমন তুমি নাচ ও পার গানও পার। কিন্তু গান ভাল গাইতে পারে নাচের তুলনায় সেক্ষেত্রে বোর্ডে বলবে আমি গানটা আগে শুনাতে চাই।
অভিনয়: অভিনয় এর ক্ষেত্রে অবশ্যই এমন নাটক এর দৃশ্য নির্বাচন করবে,যাতে একটি অথবা দুইটি চরিত্র থাকে।নাটক এর দৃশ্য ৩-৪ মিনিটের বেশি রাখার দরকার নেই। আর চেষ্টা করবে ভালো লেখকের নাটক করতে,যদি না পাও তাহলে যেকোনো ভালো কাহিনীর নাটকের দৃশ্য করবে।ভয়েস,উচ্চারন পরিস্কার থাকতে হবে। কন্ঠ স্বাভাবিক অবস্থার চেয়ে উচ্চে থাকবে। তবে যে কেউ নিজের লিখা বা ছোট গল্প বা যে কোন চরিত্র – প্রেমিকা, কাজের লোক, ভিক্ষুক, খুনি, গ্রামের বুড়ি ইত্যাদি করতে পারবে চাইলে। অভিনয়ের আসলে ধরা বাধা কোন নিয়ম মানা জরুরি না ব্যবহারিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে।
নৃত্য : নাচের ক্ষেত্রে রবীন্দ্র/নজরুল/ক্লাসিক / ভরতনাট্যম/ কথাকলি/ মণিপুরি/ আদিবাসী কিংবা দেশাত্মবোধক সঙ্গীতের সাথেও দেখাতে পারলে ভালো। বাংলা ভাষা ছাড়া অন্য কোন গানের সাথে নাচা যাবে না। আর কস্টিউম পরে আসলে ভাল নাহলে দরকার নেই। তবে এক্সট্রা অর্ডিনারি যেমন – ব্যালে, বেলিডান্স, ছৌনৃত্য, ফিউশন ইত্যাদি জানলে সেটা অবশ্যই বোর্ডে করে দেখাবে।
সংগীত: বাংলা ভাষা ছাড়া অন্য গান প্র্যাক্টিসের প্রয়োজন নেই। দেশাত্মবোধক, আদিবাসী, ফোক, বাউল, রবীন্দ্র, নজরুল, পারলে তো আরো ভালো।
কবিতা আবৃত্তি : কবিতার ক্ষেত্রে বাংলা যেকোনো কবিতা চলবে। কবিতা মুখস্থ ও শুদ্ধ উচ্চারণে যে কোন দুই বা তিনটি প্র্যাক্টিস করে আসবে।
বাদ্যযন্ত্র : যে কোন বাদ্যযন্ত্র বা ইন্সট্রুমেন্ট বাজাতে পারলে খুবই ভালো। এই বিষয়টির ভাল গুরুত্ব আছে গীটার, দোতারা, তবলা, খোল, মন্দিরা, করতাল, একতারা, ঢোল, বাঁশি, কিবোর্ড, হারমোনিয়াম, হারমোনিকা, উকেলেলে, ম্যান্ডোলিন, বেহালা ইত্যাদি যেকোন বাদ্যযন্ত্র হতে পারে।.
অংকন: নাটকের পরীক্ষায় ছবি আঁকা প্র্যাক্টিসের দরকার নেই। বোর্ডের বাহিরে যখন ফরম দিবে তখন ফরমে শুধুমাত্র একটি গাছ বা ঘর বা টুকটাক সামান্য একটা কিছু আঁকতে দিবে।
লাঠিখেলা/মূকাভিনয়/ড্রামস বাজান, কস্টিউম ডিজাইন, বই লিখা, প্রকাশনা থাকা, শর্টফিল্ম, ফিল্মের কাজ ইত্যাদি এক্সট্রা যেসব বিষয়ে তোমার দক্ষতা আছে সেগুলোও দেখানো যেতে পারে। এসব বিষয় বোর্ডের পরীক্ষকদের নিকট পছন্দনীয়।
বেশিরভাগের ভাবনা এমন যে, আমিতো জীবনে নাটক করিনি,দেখিনি। নাচ/গান অভিনয় কিছুই পারি না।আমার নাট্যতত্ত্বে চান্স হবে কিনা। প্রথমত নাট্যতত্ত্বে চান্স পেতে হলে তোমার তিনটা নম্বর যোগ করা হবে। লিখিত+প্র্যাকটিক্যাল+এসএসসি+ এইচএসসির রেজাল্ট। সব মিলে যাদের বেশি থাকবে তারাই চান্স পাবে বাকিরা ওয়েটিং লিস্টে। কেউ হয়তো নাচ/গান/অভিনয় কিছুই পারে না।তাকে প্র্যাকটিক্যালে শুধু পাস নম্বর দেওয়া হলো(একটি কথা,প্র্যাকটিক্যালে সচরাচর ফেল নম্বর দেওয়া হয়না)। দেখা গেল তার লিখিত খুব ভালো হওয়ার কারনে সে পাস নম্বর পেয়েও চান্স পেয়ে গেছে।অন্যদিকে কেউ প্র্যাকটিক্যালে ফুল নম্বর পেয়েও রিটেন খারাপ হওয়ার কারনে চান্স পায়নি।
সেলিম আল দীন এই নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা। তার সম্পর্কে ইন্টারনেট থেকে পড়ে যাবে।
এই ডিপার্টমেন্ট এ কেন পড়তে চাও? তোমার প্যাশন কি? এখানে পড়ে ভবিষ্যতে কি হতে চাও? ইত্যাদি প্রশ্ন তোমাকে জিজ্ঞেস করতে পারে তোমার চিন্তাভাবনা জানার জন্য। পরীক্ষার রুমে স্পষ্ট ও শুদ্ধ ভাষায় কথা বলতে হবে। আই কন্ট্যাক্ট, স্মার্ট আচরণ, সুন্দর কথা বলার ভঙ্গি তোমাকে বোর্ডে টিচারদের কাছে গ্রহণযোগ্য করে তুলবে।
২। চারুকলা বিভাগঃ
নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে (হতে পারে সেটা ৩০ মিনিট বা ৪৫ বা ১ ঘন্টা) একটি চিত্র/ছবি/বিষয় আঁকতে হবে। বিষয় হতে পারে যেকোন দৃশ্য, বডি পার্টস-হাত,পা কিংবা পুরো শরীর, আবার হতে পারে জড়বস্তু। মোটকথা সহজ বাংলায় আধা বা একঘন্টায় একটি ছবি আঁকতে হবে।
ছবি আঁকার সকল সরঞ্জাম (বিভিন্ন ধরনের পেন্সিল, এন্টিকাটার, বোর্ড, বোর্ড ক্লিপ ইত্যাদি) পরীক্ষার্থীকে সাথে নিয়ে যেতে হবে। মোটামুটি যাদের আর্ট চর্চায় আছে বাসায় আর্ট করা অভ্যাসে আছে তারা সর্বচ্চো চেষ্টা করে যাও নিশ্চয়ই চান্স পাবে। তবে যারা একেবারেই আর্ট পারনা বা কখনও চর্চা করনাই, হুট করে এই ৫ দিনে আসলে চান্স পাবার মত পর্যায়ে যেতে পারবে কিনা সেই বিষয়টা নিশ্চিতভাবে বলা একটু কঠিন।
চারুকলা বিভাগের ব্যবহারিক পরীক্ষার সম্পূর্ন নাম্বার শুধুমাত্র ওই আঁকা ছবির উপরই নির্ভরশীল। এখানে কোন ভাইবা বা কথাবলা কিংবা নাচ,গান এগুলো কিছুই করতে হবে না।
নিচের ছবিগুলো আর্ট, অভিনয়, ডান্স ও ইন্সট্রুমেন্টের ধরন কেমন হতে পারে তার একটি সাধারণ ধারণা দেবার জন্য সংযুক্ত করা হল।